অনুসন্ধান

বর্তমান সময়ে সবচেয়ে বেশি যে প্রশ্নগুলি ফেইসবুক ব্যবহারকারীদের মাথায় ঘুরপাক খায় সেগুলোর মধ্যে অন্যতম হচ্ছে, “কেন কিছু কিছু ভাইরাল পোস্টে আমাদেরকে ‘শেয়ার না করে’ কপি-পেস্ট করতে অনুরোধ করা হয়?” প্রথমেই বলে নেই, যতগুলো পোস্টে এরকম কপি-পেস্টের আবেদন জানানো হয় তার সবই যে ধান্দাবাজি তা কিন্তু নয়। তবে এটিও সত্য যে সকল ধান্দাবাজি পোস্টেই এই আবেদন লক্ষণীয়। কোন একটি পোস্টকে কপি-পেস্ট করতে বলা হয় মূলত তিনটি কারণে।

প্রথম কারণ

আপনি যখন একটা পোস্ট নিজের ওয়ালে কপি-পেস্ট করছেন তখন আপনি পোস্টটিকে একটা নতুন সত্ত্বা দান করছেন। এই নতুন সত্ত্বাটি তখন আর মূল পোস্টটির উপর নির্ভরশীল থাকেনা। সহজ ভাষায় বলতে গেলে, পোস্টটি একটি ইউনিক পোস্টে পরিণত হয়।

উদাহরণস্বরূপ, ধরুন ফেইসবুকে একটি পোস্ট ৫০০০ বার শেয়ার করা হল। এখন কোন কারণে যদি আসল পোস্টটি ডিলিট হয়ে যায় (ভুলক্রমে অথবা ফেইসবুকের নজরদারির কারণে) তাহলে এর সাথে সাথে বাকি ৫,০০০ শেয়ারও ডিলিট হয়ে যাবে। কিন্তু ৫,০০০ শেয়ার এর পরিবর্তে পোস্টটি যদি ৫,০০০ বার কপি-পেস্ট করা হয়, তাহলে আসল পোস্টটি ডিলিট হলেও বাকি ৪,৯৯৯টি পোস্ট রয়ে যাবে।

দ্বিতীয় কারণ

একটি পোস্ট যখন কপি-পেস্ট করা হয় তখন আর সেটি মূল পোস্টকারীর প্রাইভেসি সেটিংস এর উপর নির্ভরশীল থাকেনা।

উদাহরণস্বরূপ, ধরা যাক ইউজার ‘ক’ একটি পোস্ট দিয়েছে। তার প্রাইভেসি সেটিং সিলেক্ট করা রয়েছে “Friends only”। এখন ক-এর বন্ধু তালিকার আরেকজন ইউজার ‘খ’ পোস্টটি শেয়ার করল তার নিজের ওয়ালে। তাও ‘খ’-এর সকল বন্ধুবান্ধব পোস্টটি দেখতে পারবে না, ‘ক’-এর মূল পোস্টের প্রাইভেসি সেটিং এর কারণে।

তৃতীয় কারণ

কপি-পেস্ট করতে বলার উল্লেখযোগ্য সর্বশেষ কারণ হচ্ছে, এভাবে যখন একটা আজগুবি এবং ধাপ্পাবাজি খবরকে বারবার কপি-পেস্ট করা হয়, তখন আর সেই খবরের মূল হোতাকে শনাক্ত করার কোন উপায় থাকে না। তখন ব্যাপারটা শুধুই ওই চিলে কান নিয়ে যাওয়ার গল্পের মাঝেই সীমাবদ্ধ থাকে।

এতে কি কোন হ্যাকারের হাত থাকতে পারে?

এই কপি-পেস্ট টাইপ ম্যাসেজ এর পাশাপাশি আরও একটি জিনিস দেখা যায় ফেইসবুকে যেখানে লেখা থাকে, “সাবধান! কেউ কপি-পেস্ট করতে বললে তা ভুলেও করবেন না। কপি-পেস্ট করলেই আপনার প্রোফাইলের সমস্ত তথ্য হ্যাকারদের হাতে চলে যাবে এবং তারা আপনার প্রোফাইল ক্লোন করে আপনার ক্ষতি করবে, ইত্যাদি ইত্যাদি।” আসলেই কি তা হওয়া সম্ভব? যদিও আমরা এরকম কোন পোস্ট না বুঝেশুনে নিজের ওয়ালে কপি-পেস্ট করার বিরোধী, কিন্তু এখন পর্যন্ত এমন কোন তথ্য পাওয়া যায়নি যাতে প্রমাণিত হয় যে এই ধরণের পোস্টের মাধ্যমে হ্যাকাররা আপনার ক্ষতি করতে পারে।

এমন পোস্ট দেখলে করনীয় কি?

ফেইসবুকে যখনই এমন কোন পোস্ট পাবেন যেখানে বলা আছে “আমীন না লিখে যাবেন না”, “এক কপি-পেস্ট এক লাইক”, “আপনাদের প্রতিটা লাইকের বিনিময়ে ফেইসবুক একে এক ডলার দান করবে”, “১ লাইক = ১০০০ দোয়া”, তখন সেগুলো সযত্নে এড়িয়ে যান। আর এর মাঝে কোন একটা পোস্ট যদি আপনার ভালো লেগেই থাকে, শুধুমাত্র তখনই আপনি সেটাতে লাইক দিন বা কপি-পেস্ট করুন। আপনি আরও একটি কাজ করতে পারেন। যেকোনো উড়ো খবর পেলেই সেটাতে বিশ্বাস না করে “যাচাই”-এর মত সাইটগুলোর শরণাপন্ন হয়ে জেনে নিতে পারেন খবরটির সত্যতা কতটুকু।

মোদ্দা কথা হল, কারও প্ররোচনায় নয়, নিজের বিচারবুদ্ধি প্রয়োগ করে যদি মনে হয় আপনি কপি-পেস্ট করবেন শুধু তখনই করুন। সতর্ক থাকুন, বিপদমুক্ত থাকুন। ধন্যবাদ।

প্রথম প্রকাশ:
সর্বশেষ হালনাগাদ:

পাদটীকা

মন্তব্য

আমাদের ফেসবুকগ্রুপে আলোচনায় যুক্ত হোন।: www.facebook.com/groups/jaachai