অনুসন্ধান

মূল উৎপত্তি

বিভিন্ন খাদ্যদ্রব্যে এইচআইভি বা এইড দ্বারা আক্রান্ত করার গুজব প্রচার হচ্ছে বেশ অনেকদিন ধরেই। পূর্বে ভারতে জনৈক শ্রমিকের পেপসির সাথে এইচআইভি আক্রান্ত রক্ত মিশানোর গুজব বেশ ভাইরাল হয়। এছাড়াও আমেরিকার ওয়ালমার্টে কলার সাথে এইচআইভি মেশানোর গল্প নিয়ে কিছু বাংলাদেশী নিউজপোর্টাল সংবাদও প্রচার করে। ‘এইচআইভি’ মেশানোর এই গুজবগুলোর সম্প্রতি সংস্করণ হচ্ছে ক্যাডবেরি চকলেট সংক্রান্ত।

এই সংস্করণে একজন আফ্রিকান ব্যক্তিকে পুলিশ আটক করার ছবি সংযুক্ত করে বলা হয়,

“This is the guy who added his infected blood to Cadbury products. For the next few week do not eat any products from Cadbury, as a worker from the company has added his blood contaminated with HIV (AIDS). It was shown yesterday on BBC News. Please forward this message to people who you care.”


বাংলা: “এই ব্যক্তিটি তার এইচআইভি আক্রান্ত রক্ত ক্যাডবেরির পণ্যে মিশিয়েছে। আগামী কিছু সপ্তাহ ক্যাডবেরির পণ্য খাওয়া থেকে বিরত থাকুন। খবরটি বিবিসি সংবাদে দেখানো হয়েছে। এই বার্তাটি আপনার প্রিয়জনদের পাঠান।”

ব্যবহৃত ছবিটি মূলত ২০১৪ সালের জুলাইতে সুদানে বকো হারামের একজন গ্রেফতারকৃত সন্ত্রাসীর।[1] সেই বছর এপ্রিলে নাইজেরিয়ার নেয়ানেয়া (Nyanya) অঞ্চলে একটি বাস টার্মিনাল বিস্ফোরণ ৭৫ জন নিহত হয়। গ্রেফতারকৃত, আমিনু সাইদিক ওগোউচে (Aminu Ogwuche), এই হামলার অন্যতম মূল অভিযুক্ত পরিকল্পনাকারী।

এই ছবিটি পূর্বে পেপসি সংক্রান্ত গুজবেও ব্যবহার করা হয়―

Nyanya Bombing Nigeria Police Interpol Unit Finally Arrives Home With Ogwuche

বরাবরের মতো এই সংবাদটি সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন এবং এই সংক্রান্ত কোন খবর বিবিসি, স্কাই নিউজ বা কোন দেশের পুলিশ দ্বারা প্রচারিত হয় নি।

খাবারের মাধ্যমে ‘এইচআইভি’ সংক্রামণ হয় না

খাদ্য কিংবা পানীয়র মাধ্যমে এইচআইভি ভাইরাসের সংক্রামণ ঘটে না। আমেরিকার সেন্টারস ফর ডিজিজ কন্ট্রোল ও প্রিভেনশন এই ব্যাপারে উল্লেখ করে[2]

“এইচআইভি দীর্ঘক্ষণ শরীরের বাইরে অবস্থান করতে পারে না। এমনকি খুব সামান্য পরিমাণের এইচআইভি আক্রান্ত রক্ত কিংবা শুক্রাণু পাকস্থলীতে গেলে, বাতাসের সংস্পর্শে আসলে, রান্নার উত্তাপ ও পাকস্থলীর এসিড ভাইরাস ধ্বংস করে ফেলবে। তাই, খাদ্যের মাধ্যমে এইচআইভি সংক্রামণের কোন ঝুঁকি নেই।”

Credit: Centers for Disease Control and Prevention

স্বাস্থ্য সংক্রান্ত এই ধরনের ভুয়া সতর্কতা পাঠানো কারোরই উপকারে আসে না। এইচআইভি সংক্রামণের এমন বানোয়াট বার্তা আপনি পেয়ে থাকলে, তা আরেকজনকে পাঠিয়ে এই গুজবকে ছড়ানো থেকে বিরত থাকুন। আর যে এমন বার্তা পাঠিয়েছে তাকা জানিয়ে দিন যে এটি নেহাতই একটি গুজব।

প্রথম প্রকাশ:
সর্বশেষ হালনাগাদ:

পাদটীকা

তথ্যসূত্র

  1. "Nyanya Bombing: Nigeria Police Interpol Unit Finally Arrives Home With Ogwuche". Sahara Reporters. (জুলাই ১৫, ২০১৪).
  2. "HIV Transmission". U.S. Centers for Disease Control and Prevention. (Updated on: December 21, 2016)

মন্তব্য

আমাদের ফেসবুকগ্রুপে আলোচনায় যুক্ত হোন।: www.facebook.com/groups/jaachai

দাবীটি প্রচারণার সময়কাল