অনুসন্ধান

মূল উৎপত্তি

বিডিলাইভ২৪ নামক একটি নিউজ পোর্টাল আহসান হাবিবের ছবি ও পরিচয় ব্যবহার করে “আহসান হাবীবকে হত্যার হুমকি” শিরনামে একটি সংবাদ পরিবেশন করা হয়। মূল ঘটনাটি আহসান কবিরকে নিয়ে ঘটেছে।

আহসান কবির পেশায় রম্য লেখক ও বৈশাখী টেলিভিশনের অনুষ্ঠান বিভাগের প্রধান। তিনি গত নভেম্বর ২, ২০১৫ তারিখে রাজধানীর বনানী থানায় নিরাপত্তাহীনতার কথা উল্লেখ করে একটি জিডি করে।

বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকম থেকে জানা যায়―

এ বিষয়ে আহসান কবিরের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, “৩১ অক্টোবর তিন জনকে আহত ও একজনকে মেরে ফেলার পর আনসার আল ইসলাম আল কায়েদা উপমহাদেশ শাখা টুইটারে একটা বিশ্লেষণ দেয়।”

“বিশ্লেষণের শিরোনাম ‘আহমেদুর রশীদ টুটুল ও ফয়সল আরেফিন দীপনের অপরাধ সমূহ’। সেখানে দীপনের অপরাধ দুটি। তাদের ভাষ্যমতে, একটা অপরাধ হল- অভিজিৎ রায়ের ‘বিশ্বাসের ভাইরাস ও অবিশ্বাসের দর্শন’ ছাপানো। সেখানে ইসলামকে ব্যঙ্গ করা হয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে।”

তিনি বলেন, “ফয়সল আরেফিন দীপনের দ্বিতীয় অপরাধ হিসেবে লেখা হয়, আলেম-ওলামাদের কটাক্ষ করে আহসান কবিরের রম্য লেখা ছাপানো। জিডিতে উল্লেখ করেছি, আমার কোনো বইয়ে কোনো ধর্মের পক্ষে বা বিপক্ষে কোনো শব্দ বা বর্ণও লিখিনি।”

আহসান কবির জানান, দীপনের জাগৃতি প্রকাশনী থেকে তার ১৬টি বই বেরিয়েছে, যার মধ্যে ৫/৬টা ‍উপন্যাস; বাকিগুলো রম্য রচনা।

“টুটুল সাধারণ ডায়েরি করেছিল। অভিজিতের বই করার জন্য দীপনকেও মেরে ফেলা হল। এখন আমার নাম নতুন করে যুক্ত হল।”

প্রথম প্রকাশ:
সর্বশেষ হালনাগাদ:

পাদটীকা

তথ্যসূত্র

  1. বিডিনিউজ২৪.কম. "প্রাণ নিয়ে শঙ্কায়, আহসান কবিরের জিডি". (নভেম্বর ৩, ২০১৫).

মন্তব্য

আমাদের ফেসবুকগ্রুপে আলোচনায় যুক্ত হোন।: www.facebook.com/groups/jaachai

প্রচারিত মাধ্যম

কোন মিডিয়া অন্তর্ভুক্ত করা হয় নি? রিপোর্ট করুন