অনুসন্ধান

মূল উৎপত্তি

জুন ১০, ২০১৭ তারিখে ইংল্যান্ডের কাছে অস্ট্রেলিয়ার পরাজয়ের পর, বাংলাদেশ ক্রিকেট টিম প্রথমবারের মত চ্যাম্পিয়ন ট্রফি’র সেমিফাইনাল পর্যায় উঠে। সেদিন রাতেই সোশ্যাল মিডিয়ার বিভিন্ন একাউন্ট, পেইজ ও বিভিন্ন তথাকথিত নিউজ পোর্টাল থেকে প্রচার করা হয় ইমরান খানের এই উক্তিটি। মূলত একই লেখা হুবহু কপি-পেস্ট করে এসব পোস্ট/রিপোর্টে প্রকাশ করা হয়। পরবর্তীতে রিপোর্টটি পাঠ করার কণ্ঠসহ বিভিন্ন ছবি সংযুক্ত করে রিপোর্ট তৈরি করা হয় ইউটিউবেও। এমন কপি-পেস্ট করা ২০টি রিপোর্টের তালিকা এই পোস্টের শেষে সংযুক্ত করা হয়েছে।

পাকিস্তান ক্রিকেট টিমের প্রাক্তন অধিনায়ক ইমরান খানের করা এমন উক্তির অস্তিত্ব বাংলাদেশের কিছু ফেইসবুক একাউন্টের পোস্ট ও নিউজ পোর্টাল ছাড়া আর কোথাও দেখা যায় না। কোন আন্তর্জাতিক মিডিয়া কিংবা ইমরান খানের ব্যক্তিগত টুইটারেও এমন কোন মন্তব্যের প্রমাণ মেলে নি।

বাংলাদেশে প্রচারিত যেকোনো খবরগুলোর মধ্যে সবচেয়ে বেশি প্রতিক্রিয়া বা সাড়া পাওয়া যায় ক্রিকেট বিষয়ক খবরে। তাই স্বভাবতই এসব বেনামী নিউজ পোর্টালগুলোর লক্ষ্য থাকে ক্রিকেট বিষয়ক এই ধরণের গুজব/বিতর্কিত সংবাদ দ্রুত তাদের পোর্টালের মাধ্যমে প্রচার করার। এতে তারা পোস্টের শেয়ার, লাইক কিংবা কমেন্ট বেশী পায় এবং নিজেদের প্রচারণার পরিধি বিস্তৃত করতে পারে। অধিকাংশ ক্ষেত্রে এসব সংবাদ নিজস্ব কোন অনুসন্ধান ছাড়াই একে অপরের থেকে সম্পূর্ণ কপি-পেস্ট করার মাধ্যমে প্রকাশ করা হয়। ইমরান খানের এই মন্তব্য প্রচারের ক্ষেত্রেও এই ঘটনাটিই ঘটেছে।

পাদটীকা

মন্তব্য

আমাদের ফেসবুকগ্রুপে আলোচনায় যুক্ত হোন।: www.facebook.com/groups/jaachai

দাবীটি প্রচারণার সময়কাল

প্রচারিত মাধ্যম

কোন মিডিয়া অন্তর্ভুক্ত করা হয় নি? রিপোর্ট করুন